Home » Hosting » হোস্টিং এর ধরনে (Hosting Type)

হোস্টিং এর ধরনে (Hosting Type)

Hosting Type

সাধারনত হোস্টিং কয়েক ধরনের হতে পারে

১.বিনামূল্যে হোস্টিং করা  (Free hosting)

ছোটখাট ব্যাক্তিগত ওয়েব সাইটের জন্য এই হোস্টিং ব্যাবহার করা হয়ে থাকে। Bandwidth/Monthly Traffic খুব কম থাকে।নিরাপত্তা শক্ত হয়না। কোন ডোমেইন নামও পাবেননা।

২. শেয়ারড হোস্টিং (Shared  Hosting)

এই হোস্টিং সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং প্রচলিত। আমরা যে হোস্টিং গুলো ব্যাবহার করছি বা সাধারনত হোস্টিং প্রোভাইডাররা যে হোস্টিং অফার করে থাকে তা সবই শেয়ারড হোস্টিং। প্রফেশনাল বা কোন বড় সাইটের একটা স্বয়ংসম্পূর্ন সার্ভারের নির্দিষ্ট পরিমান সার্ভিস দরকার। এই সমস্ত সুবিধা নিজস্ব সার্ভারে নিয়ে আসতে গেলে বেশ ব্যায়বহুল হয়ে যায়। এদের জন্য Shared Hosting উপযুক্ত। এই সার্ভারের নিরাপত্তা কম  থাকে কারন এখানে একসাথে অনেক Client এর সাইট(১০ থেকে শুরু করে আরও বেশি) একসাথে থাকে। এছাড়া আনলিমিটেড ডেটাবেস, ইমেইল, ব্যান্ডওয়াইডথ এসব পাবেননা, সব সীমিত। খুব ভাল হোস্টিং প্রোভাইডারের কাছে হোস্টিং করালে শেয়ারড হোস্টিং প্যাকেজে সর্বোচ্চ নিচের সুবিধা গুলি পেতে পারেন

— ১০০% আপটাইম

— আনলিমিটেড ডিস্ক স্পেস (আসলে ১ লক্ষ ফাইল পার হলে আর আপলোড করতে দেয়না)

— আনলিমিটেড ব্যান্ডওয়াইডথ

— আনলিমিটেড ডেটাবেস

— ফ্রি cPanel

— নিজের ডোমেইনের জন্য কোন ডেডিকেটেড আইপি পাবেন না, কোন সফটওয়্যার ইনস্টল দিতে পারবেন না (সার্ভারে) এছাড়া আরো সীমাবদ্ধতা আছে।

আসলে তাদের মুল সার্ভারটির CPU এর ২৫% ভাগ বেশি ব্যবহার করে ফেললে নানান টালবাহানা শুরু করে। যেহেতু সব আনলিমিটেড লেখা থাকে তাই সরাসরি বলবেনা যে আপনোকে ডেডিকেটেড সার্ভার নিতে হবে। যখনি আপনার সাইটে প্রচুর হিট পড়বে তখনি ইনিয়ে বিনিয়ে নানান কথা এবং কাজের মাধ্যমে বুঝাতে চাইবে তারাতারি ডেডিকেটেড সার্ভার নিন। যদি না বোঝেন তাহলে আস্তে আস্তে সাইট বন্ধ/ডাউন করে রাখবে।

এরুপ একটি প্যাকেজ নিলে বছরে ৬/৭ হাজার টাকা খরচ পড়তে পারে।

৩. ডেডিকেটেড হোস্টিং (Dedicated Hosting)

এই হোস্টিং এর জন্য ডেডিকেটেড সার্ভার প্রয়োজন। এটা অনেক ব্যায়বহুল। যদি আপনার ওয়েবসাইট অনেক অনেক বড় হয় এবং শক্ত নিরাপত্তা দরকার তখন এই হোস্টিং করা চলে। এখানে আপনি আপনার খরচ পরিমান হার্ডওয়্যার পাবেন। যত ব্যাস্ত সাইট হবে তত বেশি পাওয়ারফুল হার্ডওয়্যার লাগবে। এই হোস্টিং ২ প্রকার

Managed Hosting: হোস্টিং প্রোভাইডাররাই সব করে দেবে যেমন নিরাপত্তা, সার্ভার সেটাপ, নেটওয়ার্ক কনফিগার, কোন সফটওয়ার ইনস্টল দেয়া ইত্যাদি এজন্য তাদেরকে নির্দিষ্ট পরিমান টাকা দিতে হবে।

Unmanaged Hosting: আপনি যদি Server administrator হন অর্থ্যাৎ আপনি যদি নিজেই আপনার এই ওয়েব সার্ভারের সকল কাজ করে নিতে পারেন তাহলে এটা হবে Unmanaged Hosting. এতে আপনার অনেক অর্থ সেভ হবে। সার্ভার ম্যানেজ করা শেখা যায়। ওয়েবে হাজারটা টিউটোরিয়াল আছে ইচ্ছে করলে শিখে নিজের কাজ নিজেই চালাতে পারেন।

একটা ডেডিকেটেড হোস্টিং প্যাকেজের বর্ননা এবং উদাহরন

Intel Xeon Quad Core 2.5GHz (8 threads) : ৮ কোরের প্রসেসর ২.৫ গিগাহার্জ ক্লক রেট।

500 Mbps Uplink : ৫০০ মেগাবিট ডেটা সেকেন্ডে ট্রান্সফার করতে পারবে।

8 GB Ram : RAM ৮ জিবি

1,000 GB RAID-1 Drives : ১০০০ জিবি হার্ডডিস্ক RAID 1 প্রটেকশন

20 TB Bandwidth : ২০ টেরাবাইট অর্থ্যাৎ ২০,০০০ জিবি মাসিক ব্যান্ডওয়াইডথ (বা এই পরিমান ডেটা ট্রান্সফার করতে পারবেন)

4 Dedicated IPs : ৪ টা ডেডিকেটেড আইপি

WHM, cPanel ফ্রি পাবেন, আনলিমিটেড ডেটাবেস তৈরী করতে পারবেন এবং আরো অনেক সুবিধা পাবেন।

এরুপ একটি হোস্টিং প্যাকেজ কিনতে মাসে প্রায় ১০ হাজার টাকার মত লাগবে।

৪. ভিপিএস বা VPS (Vertual Private Server) হোস্টিং

শেয়ারড আর ডেডিকেটেড হোস্টিং এর মাঝামাঝি হল ভিপিএস হোস্টিং। ডেডিকেটেড সার্ভারে সব হার্ডওয়্যার রিসোর্স একা আপনাকে দিয়ে দিবে এবং আপনার সাইট একটি সার্ভারে থাকবে। আর শেয়ারড হোস্টিং এ আপনার সাইটের সাথে থাকবে আরো হাজারটা সাইট। বিস্তারিত উপরেই আছে। ভিপিএস হোস্টিং এ সাধারনত একটা ডেডিকেটেড সার্ভার কয়েকজনকে ভাগ করে দেয়। যেমন ১৬ জিবি র‍্যামের একটা সার্ভার আপনাকে দিল ৪ জিবি এবং বাকিগুলি আরো ৩ জনকে দিল এভাবে সব রিসোর্স ভাগ/সীমাবদ্ধ করে দেয়। ডেডিকেটেড সার্ভারের মতই মোটামুটি নিজের মত যেকোন সফটওয়্যার ইনস্টল দেয়া যায়। সাধারনত তখন এরুপ হোস্টিং প্যাকেজ নিবেন যখন একটা ডেডিকেটেড সার্ভারের সব রিসোর্স আপনার লাগবেনা, তাহলে কাজও হল কিছু অর্থ সেভ হল।

: , , , ,

4 thoughts on “হোস্টিং এর ধরনে (Hosting Type)”

  1. Aminul Islam says:

    খুব ভাল লাগল। আগে H&D সম্পর্কে কিছুই জানতাম না। Thanks.

    1. ধন্যবাদ ভাই কমেন্ট করার জন্য।

  2. সালাম নিবেন, আশা করি ভলো আছেন, আমি আপনার থেকে জানতে চাই, আমি কি চাইলেই এমন কোন সাইট তৈরী করতে পারবো, যেটা দেখতে বা ব্যবহারে অনেকটা পেসবুক বা টুইট এর মত হতে পারে? তাদের মত এমন শক্ত ভিক্তি যেমন:গুগল, পেসবুক, ইয়াহু, টুইটার বা এ ধরনের ডটকম সাইট গুলোর মত, তাদের সাইট বন্দ বা ডাউন হয়না, তাদের সাইটের সবকিচু তাদের হাতেই থাকে, অন্যকেউ কোনভাবেই দেখতে বা সামান্য নিয়ন্ত্রনও করতে পারেনা, তাদের মতই এমন ডোমেইন কোথায় পাওয়া যায়, কিভাবে কেনে? কোন দেশথেকে কেনে? আমরা পারবো কি? আপনার রিপ্লের আসায় থাকবো, ধন্যবাদ।

    1. অনেক ধন্যবাদ মন্তব্য করার জন্য।

      আসলে কি করতে পারবে, আর কি করতে পারবে না, তা ডোমেইনে ডিপেন্ট করে না। তা ডিপেন্ট করে হোস্টিং থেকে। হোস্টিং থেকে সাইটে কি রাখা হবে, তা কে দেখতে পারবে, আর কে দেখতে পারবে না, তার কাজ কি হবে। টোটাল কাজটি প্রোগ্রামিং করে হোস্টিং এর মধ্যে রাখা হয়। ডোমেইন আপনি যেখান থেকেই নেন, তা সব’ই এক। কিন্তু হোস্টিং এর কিছু ভিন্নতা আছে। আর আপনি ফেসবুক, গুগল সহ এই রকম সাইট বানাতে পারবে। কারন ফেসবুক গুগলও অটো তৈরী হয়নি। তাও কেহ তৈরী করেছে। সো আপনিও চাইলে তৈরী করতে পারবেন। শুধু আপনার সেই পরিমান বাজেট রাখতে হবে। এখন আপনি যদি বাজেট রাখে ১০০০ থেকে ১ লক্ষ টাকার মত। এটা দিয়ে কিছুই হবে না। আপনার বাজেটও থাকতে হবে কয়েকশত কোটি টাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.

Facebook Fan Page

Recent Posts